প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজনীতিতে শুধু অসহিষ্ণুতার দেয়াল বেড়ে উঠছে কিন্তু সম্পর্কের সেতু নির্মাণ হচ্ছে না, বললেন ওবায়দুল কাদের

ওবায়দুর রহমান সোহান, ঢাবি প্রতিনিধি : বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) ঢাকা ইউনিভার্সিটি পলিটিক্যাল সাইন্স ডিপার্টমেন্ট এ্যালামনাই এসোসিয়েশন (ডুপডা) কর্তৃক আয়োজিত বার্ষিক সাধারণ সভা, পুনর্মিলনী ও গুণিজন সম্মাননা-২০১৯ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনীতিতে ভিন্নমত থাকতেই পারে কিন্তু আমাদের দেশের বর্তমান রাজনীতিতে অসহিষ্ণুতা বেড়ে যাচ্ছে। এই অসহিষ্ণুতা রাজনীতির পরিবেশকে আরো বিষাক্ত করে তুলছে। এখানে আমরা শুধু অসহিষ্ণুতার দেয়াল নির্মাণ করছি। অলঙ্ঘনীয় এই রাজনীতির দেয়াল কেবলই উঁচুতে এবং আরো উঁচুতে উঠছে কিন্তু সম্পর্কের সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, আমি ছোট-বড় অনেক সেতু নির্মান করেছি কিন্তু রাজনীতি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং পারিবারিক জীবনেও সম্পর্কের সেতু নির্মাণ করার প্রয়োজন ছিলো। এই সংকট নিরসনে আমাদের বিভাজন এবং মেরুকরণের রাজনীতি থেকে সরে আসতে হবে।

নির্মিতব্য মেট্ররেল প্রসঙ্গে ঢাবি শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের সমালোচনা করে সেতু মন্ত্রী বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেট্রোরেল স্টেশন করা হচ্ছে। এটা নিয়েও শিক্ষার্থীরা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে কিন্তু আমব তার কোনো কারণ খুঁজে পাই না। এই মেট্রোরেলের কারণে পড়াশোনায় ডিস্টার্ব হওয়ার কোনো বাস্তবতা বা সম্ভাবনাই নেই। এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের জন্য বিশেষভাবে এবং লেটেস্ট টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে।

এসময় তিনি আসন্ন ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যেই তারিখ ঘোষণা করেছেন, এতে বিএনপিসহ দেশের অনেকগুলো রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করছে।

বিএনপিকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা বিএনপিকে এই নির্বাচনে স্বাগত যানাচ্ছি। এই নির্বাচনটি যেন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হয় তাই আমরা আপনাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই, এই নির্বাচনটি ফ্রী ফেয়ার, এক্সেপ্টেবল এবং ক্রেডিবল সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে।

তিনি আরোও বলেন, এ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন যেন তাদের পূর্ণাঙ্গ কর্তৃত্ব স্বাধীনভাবে প্রয়োগ করতে পারে সে জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পূর্ণাঙ্গ সহযোগিতা করা হবে। আর এই নির্বাচনে হারলেও আমাদের কিছু আসবে যাবে না।

অনুষ্ঠানে ডুপডা’র সভাপতি মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সাবেক সাংসদ নাজমুল হক, সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূত মো: হুমায়ুন কবির, সাবেক সচিব মাহমুদুল হাসান, ডুপডা’র সাবেক সভাপতি রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক প্রমূখ।

এর আগে সকাল থেকেই রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীদের আগমনে মুখরিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) প্রাঙ্গণ। ৪ পর্বে অনুষ্ঠিত হওয়া এই অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে স্মৃতিচারণ ও মনজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ মিলন মেলার পরিসমাপ্তি ঘটে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত